গঙ্গা আমার মা পদ্মা আমার মা

গঙ্গা আমার মা পদ্মা আমার মা
ও ও তার দুই চোখে দুই জলের ধারা মেঘনা যমুনা।।

একই আকাশ একই বাতাস
এক হৃদয়ের একই তো শ্বাস।
দোয়েল কোয়েল পাখির ঠোটে একই মুর্ছনা।
ও ও তার দুই চোখে দুই জলের ধারা মেঘনা যমুনা।।

এপার ওপার কোন পাড়ে জানি না
ও আমি সব খানেতে আছি
গাঙ্গের জলে ভাসিয়ে ডিংগা
ও আমি পদ্মাতে হই মাঝি
শংখ চিলের ভাসিয়ে ডানা
ও আমি দুই নদীতে নাচি

একই আশা ভালবাসা কান্না হাসির একই ভাষা।
দুঃখ সুখের বুকের মাঝে একই যন্ত্রনা
ও ও তার দুই চোখে দুই জলের ধারা মেঘনা যমুনা।।

আমায় যদি প্রশ্ন করে

আমায় যদি প্রশ্ন করে
আলো-নদীর এক দেশ
বলবো আমি বাংলাদেশ।

আমায় যদি প্রশ্ন করে
কল-কাকলীর দেশ
বলবো আমি বাংলাদেশ।।

এক সূর্যের হাজার আলোর কণা
ছড়িয়ে এই মাটি করলো অরূপ সোনা।

আমায় যদি প্রশ্ন করে
মায়াবতী কোন দেশ
বলবো আমি বাংলাদেশ।।

নব দিগন্তের নতুন চলার তিথি
মিলেছে এ জীবন সম্ভবনার গীতি।

আমায় যদি প্রশ্ন করে
কাব্য-গীতির কোন দেশ
বলবো আমি বাংলাদেশ।।

আমায় যদি প্রশ্ন করে
কল-কাকলীর দেশ
বলবো আমি বাংলাদেশ।।

ভয় কি মরণে রাখিতে সন্তানে

ভয় কি মরণে রাখিতে সন্তানে
মাতঙ্গী মেতেছে আজ সমর রঙ্গে

তা থৈ তা থৈ থৈ দিমি দিমি দ্রম দ্রম ।।
ভূত পিশাচ নাচে যোগিনী সঙ্গে ।।
ভয় কি মরণে রাখিতে সন্তানে
মাতঙ্গী মেতেছে আজ সমর রঙ্গে।।

দানব দলনী হয়ে উন্মাদিনী
আর কি দানব থাকিবে বঙ্গে ।।
সাজ রে সন্তান হিন্দু-মুসলমান
থাকে থাকিবে প্রাণ, না হয় যাইবে প্রাণ ।।
ভয় কি মরণে রাখিতে সন্তানে
মাতঙ্গী মেতেছে আজ সমর রঙ্গে

লইয়ে বিপদ হওরে আগোয়ান
নিতে হয় মুকুন্দেরে নিও রে সঙ্গে।।
ভয় কি মরণে রাখিতে সন্তানে
মাতঙ্গী মেতেছে আজ সমর রঙ্গে

আমাদের একই ভাষা আমাদের একই দেশ

আমাদের একই ভাষা আমাদের একই দেশ
সহজ সরল মায়া মমতায় নাইকো যার শেষ।।

চোখ জুড়ানো ঘন নিবিড় গ্রামের শ্যামলীমায়
উদাস মনটা পাল উড়ায় অলস পুবাল হাওয়ায়।

থেমে থেমে আনে মনে কি যে মধুর আবেশ
সেই সে দেশ বাংলাদেশ আমার আমার জন্মভুমি।।

ষড়ঋতুর নানার রকম লুকোচুরির খেলায়
জীবন সেথায় অফুরান রংধুনু সুখ ছড়ায়।

হাজার নদীর কলতানে কাটে না যে রেশ
সেই যে দেশ বাংলাদেশ আমার আমার জন্মভুমি।।

জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো

জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো
এমন করে আকুল হয়ে
আমায় তুমি ডাকো।।

তোমার কথায় হাসতে পারি
তোমার কথায় কাঁদতে পারি
মরতে পারি তোমার বুকে
বুকে যদি রাখো মাগো।।

তোমার কথায় কথা বলি
পাখির গানের মতো
তোমার দেখায় বিশ্ব দেখি
বর্ণ কত শত।
তুমি আমার—খেলার পুতুল
আমার পাশে থাক মাগো।।

তোমার প্রেমে তোমার গন্ধে
পরান ভরে রাখি
এইতো আমার জীবন-মরণ
এমনি যেন থাকি।
বুকে তোমার—ঘুমিয়ে গেলে
জাগিয়ে দিও নাকো মাগো।।