Ruper Oi Prodip Jele | রূপের ঐ প্রদীপ জ্বেলে by Srikanto Acharya | শ্রীকান্ত আচার্য্য

রূপের ঐ প্রদীপ জ্বেলে কী হবে তোমার
কাছে কেউ না এলে আর
মনের ঐ এত মধু কেন জমেছে
যদি কেউ না থাকে নেবার।
রূপের ঐ প্রদীপ জ্বেলে…
কী হবে তোমার?

ও নূপুর না বাজালে কারো বাঁশিতে
ও হাসি না মেশালে কারো হাসিতে (২)
তোমার ঐ সোনার ফাগুন কী দাম পাবে
তোমার ঐ সোনার ফাগুন কী দাম পাবে
যদি কেউ না থাকে দেবার…

রূপের ঐ প্রদীপ জ্বেলে কী হবে তোমার
কাছে কেউ না এলে আর
মনের ঐ এত মধু কেন জমেছে
যদি কেউ না থাকে নেবার।
রূপের ঐ প্রদীপ জ্বেলে…
কী হবে তোমার?

এ জীবন না জড়ালে কারো জীবনে
এ স্বপন না ছড়ালে কারো স্বপনে (২)
রঙিন ঐ দিনগুলি কী এমন রবে
রঙিন ঐ দিনগুলি কী এমন রবে
সাড়া কেউ দিবে না যে আর…

রূপের ঐ প্রদীপ জ্বেলে কী হবে তোমার
কাছে কেউ না এলে আর
মনের ঐ এত মধু কেন জমেছে
যদি কেউ না থাকে নেবার
রূপের ঐ প্রদীপ জ্বেলে…
কী হবে তোমার?

Advertisements

Tomarei Koriyachi Jibonero Dhrubotara | তোমারেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারা

তোমারেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারা
এ সমুদ্রে আর কভু হব নাকো পথহারা। (২)

যেথা আমি যাই নাকো
তুমি প্রকাশিত থাকো (২)
আকুল নয়নজলে
ঢালো গো কিরণধারা…

তোমারেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারা
এ সমুদ্রে আর কভু হব নাকো পথহারা।

তব মুখ সদা মনে ,জাগিতেছে সংগোপনে
তিলেক অন্তর হলে না হেরি কূল-কিনারা।

কখনো বিপথে যদি,
ভ্রমিতে চাহে এ হৃদি (২)
অমনি ও মুখ হেরি শরমে সে হয় সারা।

তোমারেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারা
এ সমুদ্রে আর কভু হব নাকো পথহারা।

Shedin Dujone Dulechinu Bone | সেদিন দুজনে দুলেছিনু বনে

সেদিন দুজনে দুলেছিনু বনে
ফুলডোরে বাঁধা ঝুলনা (২)

সেই স্মৃতিটুকু কভু ক্ষণে ক্ষণে
যেন জাগে মনে, ভুলো না।
ভুলো না, ভুলো না…

সেদিন দুজনে দুলেছিনু বনে
ফুলডোরে বাঁধা ঝুলনা (২)

সেদিন বাতাসে ছিল তুমি জানো
আমারই মনের প্রলাপ জড়ানো (২)

আকাশে আকাশে আছিল ছড়ানো
তোমার হাসির তুলনা
ভুলো না, ভুলো না, ভুলো না…

সেদিন দুজনে দুলেছিনু বনে
ফুলডোরে বাঁধা ঝুলনা (২)

যেতে যেতে পথে পূর্ণিমা রাতে
চাঁদ উঠেছিল গগনে
দেখা হয়েছিল তোমাতে আমাতে
কী জানি কী মহা লগনে।
চাঁদ উঠেছিল গগনে… (২)

এখন আমার বেলা নাহি আর
বহিব একাকী বিরহের ভার (২)

বাঁধিনু যে রাখী পরানে তোমার
সে রাখী খুলো না, খুলো না
ভুলো না, ভুলো না, ভুলো না…

সেদিন দুজনে দুলেছিনু বনে
ফুলডোরে বাঁধা ঝুলনা (২)

Janala khola- জানলা খোলা

জানলা খোলা দেখে থমকে দাড়ালো
দুষ্টু হাওয়ায় উড়া এলোমেলো সুর..
আমার কানে কিছু বলতে এলো সে
হাতছানি তার অজানায় বহুদূর।
শাওন মেঘের দেয়া বৃষ্টি যেখানে পড়ে
ভেজা সেই মাঠে গান গাওয়া..
টুকরো সূখের দেয়া একটু আদর ছুঁয়ে
অভিমান জলে ভেসে যাওয়া।
বলতে না পারা কথা বলে গেলো সেই
সূর..
ভাসলো আকাশ অজানায় বহুদূর।
জানলা খোলা দেখে থমকে দাড়ালো
দুষ্টু হাওয়ায় উড়া এলোমেলো সুর..
আমার কানে কিছু বলতে এলো সে
হাতছানি তার অজানায় বহুদূর।
তোমার আমার কাছে সূর
আসে মাঝে মাঝে
ফিরে আসে সেই চেনা হাওয়া..
বলে যায় আজও যেন কিছুটা সময় আছে
পরে আছে কত চাওয়া পাওয়া।
যতদিন পারো তুমি বুকে টেনো এই সূর..
ডাকবে আকাশ অজানায় বহুদূর।
জানলা খোলা দেখে থমকে দাড়ালো
দুষ্টু হাওয়ায় উড়া এলোমেলো সুর..
আমার কানে কিছু বলতে এলো সে
হাতছানি তার অজানায় বহুদূর।